সংবাদ শিরোনামঃ
দেশে ফিরে বিয়ে করা হলো না প্রবাসী ফরহাদের এয়ারপোর্টে নিরাপত্তা তল্লাশির সময়ে যেসব বিষয়ে খেয়াল রাখবেন নতুন সিদ্ধান্ত নিলো আরব আমিরাতের এমিরেটস এয়ারলাইন্স কাতারে ৮টি কারণে আবেদন গ্রহন করা হচ্ছেনা কোম্পানি পরিবর্তনের দেশে সড়কপথে যান চলাচল না করায় চাপ বেড়েছে আকাশপথে মদনে ৫০ তম জাতীয় সমবায় দিবস পালিত ৬ই নভেম্বর মদনে হানাদার মুক্ত দিবস পালিত মদন পল্লীতে নারী লোভী সুমন গ্রেফতার Top 10 Health insurance companies in USA মিজানুর রহমান আজহারীর যুক্তরাজ্যের ভিসা বাতিলের নেপথ্যে যারা অর্থাভাবে ১৭ দিন ধরে মালয়েশিয়ার মর্গে পড়ে আছে বাংলাদেশীর লাশ নিজের মাথায় গুলি চালিয়ে আত্মহত্যা করল ভারতের বিএসএফ সেনা ধর্ম পরিবর্তন করে বিয়ে; স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবীতে স্বামীর বাড়িতে আত্মহত্যার চেষ্টা মদনে জাতীয় যুব দিবস উদযাপন উপলক্ষে সনদপত্র ও পুরস্কার বিতরণ কাতারে গতমাসের তুলনায় নভেম্বরে বেড়েছে তেলের দাম
সুস্থ থাকতে নিয়মিত দুধ খেতে হবেঃ তামান্না চৌধুরী

সুস্থ থাকতে নিয়মিত দুধ খেতে হবেঃ তামান্না চৌধুরী

সময় ছিল যখন এ দেশে মনে করা হতো—দুধ খায় বোকারা। কিন্তু বুড়ো বয়সে ওই মানুষটিই যখন হাড়ের সমস্যা নিয়ে ডাক্তারের কাছে যান এবং ডাক্তার প্রেসক্রিপশনে লিখে দেন ‘দুধ খেতে হবে’। তখন তাঁর আর আফ’সোসের সীমা থাকে না। তাই হা’ড়ের সমস্যা হওয়ার আগেই সবাইকে নিয়মিত দুধ খাওয়ার পরামর্শ দেন অ্যাপোলো হাসপাতাল ঢাকার প্রধান পুষ্টিবিদ তামান্না চৌধুরী।

 

তাঁর মতে, হাড়ের ওপর ভর করেই মানুষ দাঁড়িয়ে থাকে। ভি’ত্তি মজবুত না হলে যেমন বিল্ডিং টেকসই হয় না, তেমনি হাড় মজবুত না থাকলে শরীর ভালো থাকে না। দেশের অনেকেই গরুর মাংস খাওয়ায় যতটা উৎসাহী, দু’ধের বেলায় ততটা নন। তবে সময়ের সঙ্গে ইতিবাচক পরিবর্তনও হচ্ছে। দিন দিনই দেশের মানুষ সচেতন হচ্ছে। তাদের মধ্যে দুধ গ্রহণের পরিমাণ বাড়ছে। ফুড পিরামিডে সব সময় এক গ্লাস দুধের ছবি দেওয়া থাকে। অর্থাৎ, শরীর ভালো রাখতে হলে প্রতি’দিন দু’ধ খাও’য়ার প’রামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

 

উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, আমাদের দেশের মানুষের মাং’সপে’শি আশপাশের দেশের মানুষের তুলনায় বলি’ষ্ঠ নয়। আমরা মনে করি জি’ম করলে মজবুত পেশি পাওয়া যাবে। কিন্তু এই ধারণা সঠিক নয়। আসলে মাংশপেশি তৈরি হয় মূলত প্রোটিন থেকে। দুধ হলো প্রোটিনের অন্যতম উৎস। একজন মা যদি গ’র্ভাব’স্থায় ভালোভাবে দুধ খান তাহলে তাঁর স’ন্তান ভালোভাবে বেড়ে উঠবে। সন্তানও যদি নিয়মিত দুধ খায় তাহলে তার মাংসপেশি মজবুত হবে। দুধের মধ্যে ক্যাল’সিয়াম, ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম ও প্রোটিন আছে যেগুলো মাং’সপে’শি তৈরিতে ভূমিকা রাখে।

 

দুধে ফ্যা’ট থাকে। মোটা হয়ে যাওয়ার ভয়ে মধ্য’বয়সীদের অনেকে দুধ খেতে চা’ন না। এমন কথা প্রায়ই শোনা যায়। তাঁদের বেলায় পরামর্শ কী, জান’তে চাইলে তিনি বলেন, সব বয়সের মানুষের দুধের প্রয়োজন আছে। জন্মের পর শিশু মায়ের বুকের দুধ খাবে। প্রথম ছয় মাস শুধু মা’য়ের বুকের দুধ খাবে। এরপর বুকের দুধের পাশাপাশি তাকে অন্য খাবার দিতে হয়। শিশুর বেড়ে ওঠা থেকে শুরু করে কৈশোর এমনকি পূর্ণবয়’স্ক মানুষের প্রতিদিন দুধ খাওয়া উচিত। যাঁরা প্রচুর পরিশ্রম করেন, নিয়মিত হাঁটেন তাঁরা রোজ ২০০ থেকে ২৫০ মিলি পর্যন্ত দুধ খেতে পারেন। কিন্তু যাঁরা কোনো পরিশ্রম করেন না তাঁদের জন্য এক কাপ দুধও বাড়তি ক্যালরির জোগান হয়ে যেতে পারে। শুধু কিড’নি রোগী’দের বেলায় দুধ খাওয়ায় বিধি-নিষেধ আছে।

তামান্না চৌধুরী, প্রধান পুষ্টি’বিদ, অ্যাপোলো হাসপাতাল, ঢাকা

সংবাদটি শেয়ার করুন




Design BY NewsTheme