সংবাদ শিরোনামঃ
দেশে ফিরে বিয়ে করা হলো না প্রবাসী ফরহাদের এয়ারপোর্টে নিরাপত্তা তল্লাশির সময়ে যেসব বিষয়ে খেয়াল রাখবেন নতুন সিদ্ধান্ত নিলো আরব আমিরাতের এমিরেটস এয়ারলাইন্স কাতারে ৮টি কারণে আবেদন গ্রহন করা হচ্ছেনা কোম্পানি পরিবর্তনের দেশে সড়কপথে যান চলাচল না করায় চাপ বেড়েছে আকাশপথে মদনে ৫০ তম জাতীয় সমবায় দিবস পালিত ৬ই নভেম্বর মদনে হানাদার মুক্ত দিবস পালিত মদন পল্লীতে নারী লোভী সুমন গ্রেফতার Top 10 Health insurance companies in USA মিজানুর রহমান আজহারীর যুক্তরাজ্যের ভিসা বাতিলের নেপথ্যে যারা অর্থাভাবে ১৭ দিন ধরে মালয়েশিয়ার মর্গে পড়ে আছে বাংলাদেশীর লাশ নিজের মাথায় গুলি চালিয়ে আত্মহত্যা করল ভারতের বিএসএফ সেনা ধর্ম পরিবর্তন করে বিয়ে; স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবীতে স্বামীর বাড়িতে আত্মহত্যার চেষ্টা মদনে জাতীয় যুব দিবস উদযাপন উপলক্ষে সনদপত্র ও পুরস্কার বিতরণ কাতারে গতমাসের তুলনায় নভেম্বরে বেড়েছে তেলের দাম
ধর্ম পরিবর্তন করে বিয়ে; স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবীতে স্বামীর বাড়িতে আত্মহত্যার চেষ্টা

ধর্ম পরিবর্তন করে বিয়ে; স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবীতে স্বামীর বাড়িতে আত্মহত্যার চেষ্টা

ধর্ম পরিবর্তন করে বিয়ে; স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবীতে স্বামীর বাড়িতে আত্মহত্যার চেষ্টা

মোঃ শহীদুল ইসলাম (নেত্রকানা) সংবাদদাতাঃ

নেত্রকানার মদন স্ত্রীর স্বীকতির দাবীত এক গার্মেন্টস নারীকর্মীর স্বামীর বাড়িত দুইদিন যাবত অনশন করছন। কোন আশ্বাস না পাওয়ায় সোমবার সকালে স্বামীর বসত ঘরের আড়ায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহ’ত্যার চেষ্টা চালায় । পরে পরিবারের জন তাকে উদ্ধার করে।

 

ধর্ম পরিবর্তন করে মুসলিম মেয়েকে বিয়ে করে এ নিয়ে এলাকায় আলাচনা সমালোচনা সষ্টি হয়েছে। উপজেলার কাইটাইল ইউনিয়নের কেশজানী গ্রাম তাপস চদ্র বিশ্বাসের বাড়িতে এ ঘটনাটি ঘটে। জানা যায়, উপজলার কেশজানী গ্রামর সুধাংশু বিশ্বাসের ছেলে তাপস চদ্র বিশ্বাস গাজীপুর কাঁচা মালের ব্যবসা করার সুবাধে গার্মেন্টস কর্মী শেরপুর জেলার সদর উপজলার কামারচর ইউপির ধাবলারচর গ্রামের নূর ইসলামের মেয়ে মিনা আক্তার (২০) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

আরও পড়ুনঃ প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে পালিয়ে এসে সংসার হলো না মিনার

এক পর্যায় তাপস চদ্র বিশ্বাস নিজের পরিচয় আড়াল করে সুমন ইসলাম পরিচয় দিয়ে ২০১৮ সাল ১৩ ডিসেম্বর শরীয়ত মোতাবেগ মোলভীর মাধ্যমে বিয়ে সম্পন্ন করে প্রায় তিন বছর ঘর সংসার করে। গত ৫ মাস আগে মেয়েটিকে কিছু না বলেই বাড়িতে চলে আসে। গত ২০২১ সালর ৭ সেপ্টেম্বর গ্রামের বাড়ীত এসে দ্বিতীয় বিয়ে করে। এ সংবাদের প্রেক্ষিতে মেয়েটি বিয়ের এক দিন পর স্বামীর গ্রামের বাড়িতে আসলে তাকে মানসিক রাগী বলে পুলিশ হেফাজতে পাঠায়।

 

মদন থানার পুলিশ তাকে নেত্রকোনা সদর থানায় পাঠায়। এ দিক স্বামী তাপস চদ্র বিশ্বাস তার ২য় স্ত্রী তাকে ছলে বলে মিনা আক্তারের মোবাইলে মেসেজ পাঠায়। এরই প্রক্ষিতে রবিবার মিনা আক্তার কেশজানী স্বামীর বাড়িতে আসে। স্বামীসহ পরিবারের লোকজন তাকে গ্রহণ না করায় অনশন বসে এবং এক পর্যায়ে আত্মহ”ত্যার চেষ্টা চালায়। অনশনরত মিনা আক্তার জানান, মুসলিম পরিচয় দিয়ে আমার সাথে ইসলামিক শরীয়ত মোতাবেক মোলভীর মাধ্যম বিবাহ সম্পন্ন হয়। দীর্ঘ ৩ বছর সংসার করার পর আমাকে ছেড়ে বাড়িতে এসে ২য় বিয়ে করে।

 

বিয়ের খবর পেয়ে আমি আসলে আমাকে মানসিক রাগী বানিয়ে বিদায় করে দেয়। আমার মা বাবা এই খবর শুন আমাকে বাবার সংসার থেকে তাড়িয়ে দেয়। আমি নিরুপায় হয়ে স্ত্রী স্বীকতির দাবিতে এখানে এসেছি। আমাকে স্ত্রীর স্বীকৃতি না দিলে আমি যাব না আমার লাশ যাবে। সে আমার গর্ভের ২টি সন্তান নষ্ট করছে। ২য় স্ত্রী সান্তা রানীদাস জানায়, সে মুসলিম, আমি হিদু, আমরার একবারই বিয়ে হয়। মিনা দ্বিতীয় বিয়ে করতে পারবে আমাকে আনুষ্ঠানিকভাব বিয়ে করে এনেছে। আমি এখানেই থাকব। অভিযুক্ত তাপস চদ্র বিশ্বাস বলে মিনা আক্তারর সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সে যদি বিয়ের কাগজপত্র দেখাতে পারে তাহলে আমি তাকে স্ত্রী হিসাবে গ্রহণ করব।

 

ওসি মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সোমবার ছেলে এবং মেয়ে উভয়কেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। মেয়েটি লিখিত অভিযাগ দিয়েছে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর আগে মানসিক রোগী বানিয়ে সদর থানায় প্রেরণ করা হয়েছিল। বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, “বিষয়টি সত্য নয়, সদর থানায় তাকে তার পরিবারের লোকজন নিয়ে গেছেন।”

সংবাদটি শেয়ার করুন




Design BY NewsTheme