নোটিশঃ
দৈনিক প্রতিবেদন অনলাইন নিউজ পোর্টালের পরীক্ষামূলক সম্প্রচারে আপনাকে স্বাগতম। সারাদেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা ও ক্যাম্পাস ভিত্তিক প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে- আগ্রহীরা ই-মেইল করুনঃ dailyprotibedon24@gmail.com
সংবাদ শিরোনামঃ
৩ বছর ধরে বাহরাইনের জেলে নিরপরাধ বাংলাদেশি যুবক ইসলাম গ্রহণকারী পাঁচ তারকা খেলোয়াড় মদনে স্বেচ্ছাসেবকলীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত পরকালের ভয়ে অভিনয় ছেড়ে ইসলামের পথে সমালোচিত অভিনেত্রী সানাই নান্দাইলে জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নে রাস্তার অভাবে গৃহবন্ধী পরিবার প্রে‌মিকার উপর অ‌ভিমান ক‌রে প্রেমি‌কের আত্ম’হ’ত্যা নদী ভাঙ্গন ও বিদ্যুৎ সমস্যায় অচলাবস্থা মনপুরা দ্বীপের গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর শহরে বো’মা-ক’ক’টেল সদৃশ বস্তু উদ্ধার সালথায় পাট কাঁটা-ধোয়া নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে পাট চাষীরা বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ভাগনেকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেল মামারও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে জ’বাই করে নির্ম’মভাবে হ’ত্যা করো’নায় ছেলের আক্রান্তের খবরে মারা যান মা, এরপর মারা গেলেন বাবাও মাছের ড্রাম থেকে বেরিয়ে এলো দশ যাত্রী, যা করা হলো তাদের ইমরান খানের জন্য এক হাজার কেজি হাড়িভাঙা আম পাঠালেন শেখ হাসিনা টিকার ৭৫ শতাংশই দেওয়া হয়েছে মাত্র ১০টি দেশের মানুষকেঃ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা
জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া উগান্ডার প্রেসিডেন্ট কাগুতা মুসেভেনি-র ভাষণ

জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া উগান্ডার প্রেসিডেন্ট কাগুতা মুসেভেনি-র ভাষণ

জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া উগান্ডার প্রেসিডেন্ট কাগুতা মুসেভেনি-র ভাষণ

সম্ভ’বত কোভিড-১৯ নিয়ে এ’টিই এখন প’র্যন্তু পৃথি’বীর সেরা ভাষণঃ

“সৃষ্টিকর্তার অনেক কাজ আছে — পুরো দুনিয়াটা দেখভাল করার দায়িত্ব তাঁর। তিনি শুধুমাত্র উগান্ডার বোকা মানুষদের দেখাশুনার জন্যে এখানে বসে নেই।

যুদ্ধা’বস্থায় কেউ কাউ’কে ঘরে’র মধ্যে বসে থাকতে বলে না। আপ’নি ঘরে থাকলে সেটা আ’পনার নিজের চ’য়েস। সত্যি কথা বলতে কী, আপনা’র যদি একটা বেজ’মেন্টও থাকে নিজে”কে লুকিয়ে রাখার জ’ন্যে তাহলে যুদ্ধে’র ধ্বংস’লীলা যতদিন না শেষ হয় ততদিন আপনি সেখা’নেই লুকিয়ে থাকবেন।

যুদ্ধে’র সময় স্বা’ধীনতা খ’র্ব হয়। আপ’নি ইচ্ছে করে’ই স্বাধীন’তাকে বিস’র্জন দেন শুধু’মাত্র নি’জের বেঁ’চে থা’কার জ’ন্যে। এ সময় আপ’নি ক্ষু’ধার জন্যে কারো কা’ছে না’লিশ ক’রেন না। এ সম’য় আপ’নি কায়ম’নোবাক্যে সৃষ্টি’কর্তার কা’ছে প্রার্থনা করেন শুধুমাত্র বেঁচে থাকার জন্যে, বেঁচে থাকলে খেতে পারবেন।

যুদ্ধে’র সময় আপ’নি আপনা’র ব্যব’সা খো’লা রা’খার জন্যে তর্ক ক’রেন না। আপনি আপ’নার দোকা’ন বন্ধ ক’রে দেন ( তবে সেই সময়’টুকু যদি আপনি পান), এবং জী’বন বাঁচা’নোর জ’ন্যে দৌ’ড়ে পালান। আ’পনি সারা’ক্ষণ প্রার্থনা করেন যেন যু’দ্ধটা তাড়া’তাড়ি শে’ষ হয় এবং আপনি আপ’নার ব্যবসাটাও আবার চা’লু করতে পারেন, যদি না আপনার দোকা’নের সমস্ত মাল পত্র লু’ট হয়ে যায় বা মর্টা’রের আ’ঘাতে স’ম্পূর্ণ ধ্বং’স হয়ে যায়।

যুদ্ধে’র সময় একটিও দিন বেঁচে থাকতে পার’লে আপনি সৃষ্টি’কর্তার কাছে শুক’রিয়া আদায় করেন। এ সময় আপ’নার সন্তা’নরা স্কুলে যেতে পার’লো না বলে আপ’নি দু:খ করে’ন না। আপনি সৃষ্টি’কর্তার কাছে দোয়া করেন যা’তে সরকার আপ’নার সন্তান’দেরকে যু’দ্ধে যাও’য়ার জন্যে সেনা’বাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত না করে এবং তাদের স্কুল-মাঠেই ( যেটি এখন সেনা ক্যাম্প ) তাদের’কে প্রশি’ক্ষণের জন্যে নিয়ে না যায়।।

পৃথিবীতে এখন একটি যুদ্ধ চলছে — এমন একটি যুদ্ধ যেখানে বন্দুক ও গুলির ব্যবহার নেই, যে যুদ্ধের কোনো সীমানা নেই, যে যুদ্ধ কোনো সীমানা নিয়েও বাধে নাই, কোনো পবিত্র ভূমি নিয়েও না। এই যুদ্ধে কোনো যুদ্ধবিরতি চুক্তিও নেই; এ যুদ্ধ থামানোর জন্যে কোনো জাতিসংঘও নেই।

আরও পড়ুনঃ গল্পের নাম ‘পাপী’ (শেষ পর্ব): আল মুজাহিদ

এই যু’দ্ধের সৈ’ন্যদের কোনো’প্রকার দয়া মায়া নেই। শিশু, মহিলা বা প্রার্থনা’র স্থান, কোনো’কিছুর প্র’তিই এই সৈন্য’দের কো’নো শ্রদ্ধা’বোধ নেই। কোনো শাসক’গোষ্ঠীকে পরিব’র্তন করার ই’চ্ছা এদের নেই। মাটির নিচের মূল্য’বান খনিজ’সম্পদ লুন্ঠ’নের কোনো খায়েশ এদের নেই। ধর্ম, গোষ্ঠী বা আদর্শ’গত প্রভুত্ব বিস্তারের কোনো লি’প্সাও এ’দের নেই।

শুধু একটা’ই খায়েশ এ’দের, আর তা হলো মৃ’ত্যু ঘটানো, মৃত’দের আ’ত্মা নিয়ে তাদে’র ঘরে তোলা, যে’মন করে কৃ’ষক ফসল ঘরে তো’লেন। এরা তত’ক্ষণ পর্যন্তু তা’দের এ মহোৎ’সবে মেতে থাকবে যত’ক্ষণ না পুরো পৃথিবীটা একটা মৃত্যুকূপে পরিনত হবে। এদের উদ্দেশ্য সাধনের ক্ষমতা সম্পর্কে বিন্দুমাত্র সন্দেহ থাকার কোনো কারণ নেই। কোনোরকম যুদ্ধাস্ত্র ছাড়াই পৃথিবীর প্রত্যেকটি দেশে এরা ঘাঁটি গেড়েছে। এদের গতি’বিধি বা আ’ক্রমণ কো’নো রীতি’নীতি বা প্রটো’কল দ্বারা আ’বদ্ধ নয়। এ যু’দ্ধের সৈনি’করাই হচ্ছে করো’না ভাইরা’স যাকে আমরা সং’ক্ষেপে কোভিড -১৯ বলি।

তবে আ’শার কথা হচ্ছে, এই সৈন্য’দেরও একটা দুর্বল’তা আছে এবং এদের’কে হারানো সম্ভব। এর জন্যে যা দরকার তা হলো — আমাদের সম্মি’লিত প্রচেষ্টা, নিয়ম’নুবর্তিতা এবং ধৈর্য। কো’ভিড ১৯ সামা’জিক এবং শারি’রীক দুরত্বে টিকে থাকতে পারে না। এটা সংস্পর্শ/সংঘর্ষকে পছন্দ করে। এটি আমাদের সামাজিক বা শারিরীক দুরত্বের কাছে পরাজয় বরণ করে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কাছেও হার মানে। আপনার হাত জীবানুমুক্ত থাকলে এরা একেবারেই অসহায়।

আ’সুন আমরা স্বাস্থ্য’বিধি মে’নে চলি এবং কোভিড ১৯-কে পরাজিত করি। কষ্ট হলেও একটু ধৈর্যধারণ করি। বেশিদিন লাগবে না আমরা আবার স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারবো, আমাদের মন যা চায় তা করতে পারবো! এই জ’রুরী মূহু’র্তে আ’মরা জ’রুরী সেবা প্রদা’নে রত থাকি এবং অন্য’দেরকে ভালো’বাসি! “

সংবাদটি শেয়ার করুন




© ২০২১ | দৈনিক প্রতিবেদন কর্তৃক সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত

Design BY NewsTheme